1. iliycharman7951@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : support :
উচ্চ আদালতের নির্দেশে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন আবু তৈয়ব, অন্য প্রার্থীরাও সরব - matamuhuri - মাতামুহুরী
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:৫৯ পূর্বাহ্ন

উচ্চ আদালতের নির্দেশে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন আবু তৈয়ব, অন্য প্রার্থীরাও সরব

নিজস্ব প্রতিবেদক ::
  • আপডেট : রবিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২২
  • ৩৪৭ পঠিত

উচ্চ আদালতের নির্দেশে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন চকরিয়া উপজেলা সাধারণ সদস্য (৬নং ওয়ার্ড) প্রার্থী আবু তৈয়ব। গতকাল রবিবার সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে এ নির্দেশনা দেন।
এদিকে চকরিয়া উপজেলা সাধারণ ওয়ার্ড ৬নং থেকে সদস্য পদে ভোটযুদ্ধে লড়ছেন পাঁচ প্রার্থী। অপরদিকে চকরিয়া উপজেলা সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সদস্য পদে ভোটের লড়াইয়ের আছেন তিন নারী।
সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী আবু তৈয়বের হলফনামায় দুইটি ফৌজদারি মামলার তথ্য গোপনের অভিযোগে অপর প্রার্থী এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম প্রথমে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের আপীল কর্তৃপক্ষের কাছে ও পরবর্তীতে আপীল মামলা করেন সুপ্রীম কোর্টের চেম্বার জজ আদালতে। গত ৪ অক্টোবর বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম এর একক বৈঞ্চ মামলার শুনানী শেষে সদস্য প্রার্থী আবু তৈয়বের প্রার্থীতা স্থগিত ঘোষণা দিয়ে পূর্নাঙ্গ শুনানীর জন্য ১৬ অক্টোবর দিন নির্ধারণ করেন। অবশ্যই ওইদিন কক্সবাজার জেলা রির্টানিং কর্মকর্তার দপ্তর থেকে টিউবওয়েল প্রতীক বরাদ্দ পেলেও মুলত সেই থেকে নির্বাচনী মাঠে অনুপস্থিত ছিলেন আবু তৈয়ব।
এদিকে সর্বশেষ গতকাল ১৬ অক্টোবর সুপ্রীম কোর্টের চেম্বার জজ আদালতে আপীল মামলার শুনানী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সদস্য পদে প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে আবু তৈয়ব নির্বাচনের একদিন আগে ভোটের মাঠে নতুন চমক দিয়েছেন। প্রতিবেদনটি তৈরীর মুর্হুতে সদস্য প্রার্থী আবু তৈয়ব বিমানে কক্সবাজার হয়ে চকরিয়া উপজেলা ফেরার পথে খুটাখালী ও ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেম্বারদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করছেন বলে তাঁর সহকর্মীরা নিশ্চিত করেছেন।
অনুষ্ঠিতব্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে চকরিয়া উপজেলা সাধারণ ওয়ার্ড (৬নং) থেকে ভোটযুদ্ধে আছেন প্রার্থীরা হলেন বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এটিএম জিয়াউদ্দিন চৌধুরী জিয়া (বৈদ্যুতিক পাখা), আবু তৈয়ব (টিউবওয়েল), অধ্যাপক সোলতান আহমদ (ঘুড়ি) এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম (তালা) ও মোহাম্মদ ফয়সল চৌধুরী (হাতি)।
অপরদিকে জেলা পরিষদের চকরিয়া পেকুয়া ও কুতুবদিয়া উপজেলা নিয়ে গঠিত (চকরিয়া উপজেলা সংরক্ষিত ওয়ার্ড) প্রার্থী হয়েছেন তিনজন। তারা হলেন তানিয়া আফরিন (দোয়াত কলম), আসমাউল হুসনা (টেবিল ঘড়ি), রেহেনা খানম রাহু (ফুটবল)।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেপি দেওয়ান বলেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনে চকরিয়া উপজেলার সাধারণ ওয়ার্ড (৬নং) ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড (৭নং) এর চকরিয়া উপজেলা অংশের ভোটাররা ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন মোহনায় স্থাপিত ভোট কেন্দ্রে। ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাচন অফিসের সহায়তায় ভোট কেন্দ্রের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। রোববার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে ভোটারদের উপস্থিতিতে ইভিএম এ ভোটদানের পদ্ধতি সবাইকে দেখিয়ে দেওয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা মোতাবেক ভোট কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। ১৭ অক্টোবর সকাল ৯টায় শুরু হয়ে বিকাল দুইটা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার মোট ভোটার ২৪৭ জন। এছাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও দুই ভাইস চেয়ারম্যান মিলিয়ে মোট দুইশত ৫০ জন ভোটার।
তবে ভোটারদের মধ্যে ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার রমজান আলী পরিষদের সচিব ও গ্রাম পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় মামলার আসামি হিসেবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় কর্তৃক বরখাস্ত হবার কারণে ভোট দিতে পারবেনা বলে নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও খবর

© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Customized BY Iliaych