1. iliycharman7951@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : support :
হিমাদ্রী হত্যা মামলা: কুকুর লেলিয়ে দেয়া তিন আসামির সাজা বহাল - matamuhuri - মাতামুহুরী
শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
চকরিয়ায় ভিসা টেস্ট সেন্টার করলে বিদেশ গামি কর্মীদের উপকার হবে সূর্যমুখী চাষে লাভের স্বপ্ন দেখছেন লামার কৃষক স্বজরাম ত্রিপুরা রওশন-ফেরদৌস গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন কক্সবাজারের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন করেন কুটনীতিকরা বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে আমার বক্তব্য দুদকের মামলায় স্ত্রী সহ কারাগারে শাহজাহান আনচারী বিলছড়ি হেব্রোণ মিশনে বার্ষিক উপহার বিতরণ কালোবাজারী হাত থেকে কোন ভাবেই থামানো যাচ্ছে না কক্সবাজার রুটের ট্রেনের টিকিট জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন সম্পন্ন : জসিম আবছার জাহিদ হেলাল হারুন মুকুল জয় সহ ২৭ জন জয়ী জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন শনিবার : ২৩ পদে লড়ছেন ৩৫ জন প্রার্থী

হিমাদ্রী হত্যা মামলা: কুকুর লেলিয়ে দেয়া তিন আসামির সাজা বহাল

চট্টগ্রাম অফিস
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৩ নভেম্বর, ২০২২
  • ৩৪৬ পঠিত

চট্টগ্রামে কুকুর লেলিয়ে দিয়ে হিমাদ্রী মজুমদারকে হত্যার মামলায় মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত তিন আসামির সাজা বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। তবে বিচারিক আদালতে মৃত্যুপ্রাপ্ত অপর দুই আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত। পাঁচ জনের ডেথ রেফারেন্স ও আপিল আবদেনের ওপর শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তী ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।
মৃত্যুদন্ড বহাল থাকা তিন আসামি হলো মাহাবুব আলী ড্যানি, জুনায়েদ রিয়াদ ও জাহিদুল ইসলাম শাওন। খালাস পাওয়া আসামিরা হলো শাহাদাত হোসেন ও শাহ সেলিম ওরফে টিপু। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল জাহিদ আহমেদ হিরো। এর আগে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ এলাকার সামার ফিল্ড স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে থেকে ২০১২ সালের ২৭ এপ্রিল হিমাদ্রীকে ধরে নিয়ে যায় আসামিরা। হিমাদ্রী ওই স্কুল থেকে ‘এ’ লেভেল পাস করেন। আসামিরা তাকে ধরে পাঁচলাইশ এলাকায় রিয়াদের বাবা ব্যবসায়ী টিপুর বাড়ির ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে আটকে রেখে মারধরের পর হিংস্্র কুকুর লেলিয়ে ও ধাক্কা দিয়ে তাকে ফেলে দেওয়া হয়। হাসপাতালে ২৬ দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর একই বছরের ২৩ মে হিমা দ্রীর মৃত্যু হয়।
ওই হত্যার ঘটনায় তার মামা প্রকাশ দাশ বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় এ হত্যা মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ২০১২ সালের ৩০ অক্টোবর পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।
বিচার শেষে ২০১৬ সালের ১৪ আগস্ট পাঁচ আসামিকে মৃত্যুন্ডাদেশ দেন চতুর্থ অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ মো. নুরুল ইসলাম। আসামিদের মধ্যে জুনায়েদ ও জাহিদুল পলাতক। পরে নিয়ম অনুসারে আসামিদের মৃত্যুদন্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য নথি হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি আসামিরা জেল আপিল করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও খবর

© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Customized BY Iliaych