1. iliycharman7951@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : support :
চকরিয়া-পেকুয়া আসনে নৌকার নতুন মাঝি সালাহ উদ্দিন সিআইপি এলাকায় মিষ্টি বিতরণ, আনন্দ মিছিল - matamuhuri - মাতামুহুরী
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন

চকরিয়া-পেকুয়া আসনে নৌকার নতুন মাঝি সালাহ উদ্দিন সিআইপি এলাকায় মিষ্টি বিতরণ, আনন্দ মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট : রবিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২৩
  • ১৩৯ পঠিত

কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন লাভ করায় চলছে মিষ্টি বিতরণ ও আনন্দ উৎসব। চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার ২৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরএলাকায় নেতাকর্মীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। বিভিন্ন এলাকায় খন্ড খন্ড মিছিল বের করে নৌকার সমর্থনে। তারা নৌকা প্রতীককে বিজয় করার আহবান জানান। রোববার বিকাল ৫টার দিকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপির মনোনয়ন ঘোষণার পরপরই উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা আনন্দে ফেঁটে পড়েন।
এদিন বিকালে চকরিয়া পৌরশহরের চিংড়ি চত্বরে আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে জড়ো হন। সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপি’র জন্য দোয়া কামনা করেন। তারা আল্লাহর কাছে শোকরিয়া আদায় করে মোনাজাত করেন।

জানা গেছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসন থেকে ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন ১৮ জন প্রাথী। গত ২১ নভেম্বর সবাই নৌকার মনোনয়ন ফরম পূরণ করে রাজধানী ঢাকায় আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন। এরপর সকলের আমলনামা পর্যালোচনা শেষে রোববার ২৬ নভেম্বর আওয়ামী লীগের সংসদীয় কমিটির মনোনয়ন বোর্ড কক্সবাজার-১ আসনে সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপিকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন।

এদিকে সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নৌকার টিকেট নিয়ে আসলেন সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপি। যার সততা, ক্লিন ইমেইজ ও সাংগঠনিক দক্ষতায় এ আসনে তাকে মনোনয়ন দিয়েছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নেতৃত্বে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও লুট-পাট বন্ধ করতে সক্ষম হবে। একজন দক্ষ সংগঠক হিসেব পরিচিতি লাভ করেন সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপি। দীর্ঘদিন ধরে সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপি চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার মাঠে ময়দানে কাজ করে দলকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন।
সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপি চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের বাসিন্দা। ইতোপূর্বে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম আহবায়ক পদে প্রায় ১৩ বছর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৯৬ সালে সপ্তম, ২০০১ সালে অষ্টম ও ২০০৯ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টানা তিনবার চকরিয়া-পেকুয়া আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ছিলেন। এই তিনটি নির্বাচনে সালাহউদ্দিন সিআইপি অল্প ভোটের ব্যবধানে হেরে গেলেও সেই থেকে অদ্যবদি নির্বাচনী এলাকার জনসাধারণ এবং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করেছেন। পাশাপাশি তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় বিভিন্ন কর্মসুচিতে সরব উপস্থিতি থাকতেন।

এদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপিকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় দলের সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন চকরিয়া উপজেলা, পেকুয়া উপজেলা, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকলস্থরের নেতাকর্মী। রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে নির্বাচনী এলাকার সাধারণ জনগণকে সাথে নিয়ে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিয়ন কমিটি। বদরখালী ইউনিয়নে তাৎক্ষণিক আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ জনতা। বদরখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরে হোছাইন আরিফ, বদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক জসিম উদ্দিন টিটু, শাহাব উদ্দিন শাকিল আনন্দ মিছিলে নেতৃত্ব দেন। পেকুয়া উপজেলা সদরে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী। জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য এসএম গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আজম খান, যুবলীগ নেতা আজমগীর আনন্দ মিছিলে নেতৃত্ব দিয়েছেন। মগনামা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান খায়রুল এনামের নেতৃত্বে মগনামা স্টেশন, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলার দরবেশকাটা এলাকায় সাবেক ছাত্রনেতা ইকবাল দরবেশী, সজিব মোস্তফার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
একইসময়ে চকরিয়া পৌরসভার চিংড়ি চত্বরে সর্বস্থরের জনসাধারণ ও আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীর মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরীর উদোগে উপস্থিত জনসাধারণ এবং দলীয় নেতাকর্মী সবাইকে এসময় মিষ্টি মুখ করা হয়েছে।

মাতামুহুরী থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল বলেন, গত পাঁচটা বছর বর্তমান সাংসদ জাফর আলম আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের হয়রানী করেছেন। মিথ্যা মামলা দিয়ে অনেককে ঘর ছাড়া করেছেন। সাধারণ মানুষের সহায় সম্পদ কেড়ে নিয়েছেন। তার বাহিনী দিয়ে চিংড়িজোনে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন। কিছু হাইব্রিড নেতাদের দলের পদপদবী দিয়ে ত্যাগীদের বঞ্চিত করেছেন। এসব কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। এবারের মনোনয়ন সৎ, যোগ্য ও ক্লিন ইমেইজের ব্যক্তিকে মনোনয়ন দিয়েছেন বলে জানান তিনি।

চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন বলেন, তার ইউনিয়ন চিরিঙ্গায় হাজার হাজার চিংড়িঘের রয়েছে। সেখানে বর্তমান সাংসদ ও তার স্বজনরা বাহিনী তৈরী করে লুটপাট চালাচ্ছে প্রতিনিয়ত। সাধারণ মানুষ অসহায় পড়েছেন তাদের অত্যাচারে। এই এলাকার মানুষ মনোনয়ন পরিবর্তনের আল্লাহর কাছে শোকরিয়া আদায় করেছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও খবর

© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Customized BY Iliaych