1. iliycharman7951@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : support :
চকরিয়া-পেকুয়ার ১৫৮ ভোট কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে নির্বাচনী সরঞ্জাম, ব্যালট যাবে ভোটের দিন সকালে - matamuhuri - মাতামুহুরী
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দুদকের মামলায় স্ত্রী সহ কারাগারে শাহজাহান আনচারী বিলছড়ি হেব্রোণ মিশনে বার্ষিক উপহার বিতরণ কালোবাজারী হাত থেকে কোন ভাবেই থামানো যাচ্ছে না কক্সবাজার রুটের ট্রেনের টিকিট জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন সম্পন্ন : জসিম আবছার জাহিদ হেলাল হারুন মুকুল জয় সহ ২৭ জন জয়ী জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন শনিবার : ২৩ পদে লড়ছেন ৩৫ জন প্রার্থী প্রধানমন্ত্রী একবার যাকে দুরে টেলে দেন, তাকে আর কাছে আসতে দেন না চকরিয়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দেওয়া নিয়ে সাবেক সাংসদ জাফরের নেতৃত্বে বিশৃঙ্খলা ও সাধারণ মানুষকে অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে শহরের ২টি প্রাইভেট হাসপাতালে অভিযান চকরিয়ায় ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন চকরিয়া সোসাইটি বায়তুল মাওয়া শাহী জামে মসজিদ কমিটি গঠনে প্রশাসনের তিন সদস্যের কমিশন গঠন

চকরিয়া-পেকুয়ার ১৫৮ ভোট কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে নির্বাচনী সরঞ্জাম, ব্যালট যাবে ভোটের দিন সকালে

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট : শনিবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ২৭ পঠিত

৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের ১৫৮টি কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। শনিবার দুপুর থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যার আগ মূহুর্তে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন থেকে কেন্দ্র ভিত্তিক দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা উপস্থিত হয়ে নির্বাচনী সামগ্রী গ্রহণ করেছেন। তবে ব্যালট যাবে সকালে। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পাহারায় স্ব-স্ব কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পৌছে দেওয়া হবে বলে জানান নির্বাচন কর্মকর্তা।
চকরিয়া উপজেলা থেকে ১৮ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকার ১১৪ ভোট কেন্দ্রের নির্বাচনী সামগ্রী বিতরণ করেন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফখরুল ইসলাম ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা (মো.ইরফান উদ্দিন)।
অন্যদিকে পেকুয়া উপজেলা থেকে ৭ ইউনিয়নের ৪৪ ভোট কেন্দ্রের নির্বাচনী সামগ্রী বিতরণ করেন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চাই থোয়াইহলা চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রেজাউল করিম।
জানা গেছে, আজ ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-১ আসনের ১৫৮ কেন্দ্রের অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণে প্রশাসনের পক্ষথেকে যাবতীয় প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে ভোট কেন্দ্র এলাকায় টহল তৎপরতা জোরদার করেছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।
নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ শাহীন ইমরানের নির্দেশে চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন, একটি পৌরসভা ও পেকুয়া উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ১৫৮টি কেন্দ্রে ইতোমধ্যে ভোট গ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চকরিয়ার ইউএনও মো.ফখরুল ইসলাম এবং পেকুয়ার ইউএনও চাই থোয়াইহলা চৌধুরী।

তাঁরা বলেন, শনিবার দুপুরের পর দুই উপজেলার ১৫৮ ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা উপজেলা পরিষদে উপস্থিত হয়ে নির্বাচনী সামগ্রী গ্রহণ করেছেন। পুলিশ আনসার সদস্যসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহযোগিতায় প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে নির্বাচনী সামগ্রী পৌঁছে গেছে।
১১৪ ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৯৬টি ভোট কেন্দ্রকে অতি ঝুকিপূর্ণ ও ১৮টি কেন্দ্রকে সাধারণ এবং পেকুয়া উপজেলার ৪৪ ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ২২টি অতি ঝুকিপূর্ণ ও অপর ২২টি সাধারণ ভোট কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। এসব অতি ঝুকিপূর্ণ ভোট কেন্দ্রকে বিশেষ বিবেচনায় নিয়ে প্রশাসন বাড়তি নজরদারি নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ শাহীন ইমরান।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.ফখরুল ইসলাম বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ নিশ্চিতে চকরিয়া উপজেলার ১১৪ ভোট কেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১৭৭৩ জন সদস্য কাজ করবেন। তদারকিতে থাকছেন ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও দুইজন জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট। একইভাবে পেকুয়া উপজেলার ৪৪ কেন্দ্রে একজন জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ও তিনজন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

সুত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে চকরিয়া উপজেলায় ১০৭ জন, পেকুয়া উপজেলায় ৬৫ জন সেনা বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। পাশাপাশি চকরিয়া উপজেলায় ১০ প্লাটুন (২০০ জন) ও পেকুয়া উপজেলায় ৭ প্লাটুন (১৪০ জন) বিজিবি সদস্য আইনশৃঙ্খলা দেখভালে থাকবেন। একইসঙ্গে চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলায় র‌্যাবের দুইটি করে চারটি টিম, পুলিশের ১৭টি মোবাইল টিম, দুইটি স্টাইকিং ফোর্স এবং ১৯০৯ জন আনসার সদস্যরা কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করবেন।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইরফান উদ্দিন বলেন, দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-১ আসনে মোট ভোট কেন্দ্র ১৫৮টি। চকরিয়ায় ১১৪টি ও পেকুয়ায় ৪৪টি কেন্দ্র্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পাহারায় ব্যালট পেপার যাবে সকালে স্ব-স্ব কেন্দ্রে পৌছে দেওয়া হবে। চকরিয়ায় ভোট কক্ষের সংখ্যা ৭৪৯টি ও পেকুয়ায় ২৯৪টি। মোট ভোটার ৪ লাখ ৮৪ হাজার ৪১৯ জন। চকরিয়ায় মোট ভোটার ৩ লাখ ৫১ হাজার ৫৫৫ জন ও পেকুয়ায় মোট ভোটার ১ লাখ ৩২ হাজার ৮৬৪ জন।
তিনি বলেন, ভোট গ্রহণে নিয়োজিত থাকবেন ১৫৮ জন প্রিসাইডিং, ১০৪১ জন সহকারী প্রিসাইডিং ও ২০৮২ জন পোলিং অফিসার।

কক্সবাজার-১ আসনে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন ৭ জন প্রার্থী। তাঁরা হচ্ছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত বাংলাদেশ কল্যাণ পাটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক (হাতঘড়ি), স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান এমপি জাফর আলম (ট্রাক), জাতীয় পার্টির এরশাদ সমর্থিত হোসনে আরা আরজু (লাঙ্গল), ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনীত হাজি আবু মোহাম্মদ বশিরুল আলম (হাতুড়ি), ইসলামি ফ্রন্টের মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন ছিদ্দিকী ( মোমবাতি), স্বতন্ত্র প্রার্থী কমেডিয়ান কমরউদ্দিন আরমান (কলারছড়ি), স্বতন্ত্র প্রার্থী তানভীর আহমেদ ছিদ্দিকী তুহিন (ঈগল)।

সরেজমিনে দেখা গেছে, নির্বাচনে মোট সাতজন প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্বীতা করলেও মুলত এখানে ভোটযুদ্ধ হবে দুই হেভিওয়েট প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত কল্যাণ পাটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক (হাতঘড়ি) সঙ্গে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য জাফর আলমের (ট্রাক গাড়ি) মধ্যে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও খবর

© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Customized BY Iliaych