রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
এবার ঈদে ঘরমুখো মানুষদের যাত্রা পথ সহজ ও নিরাপদ করতে সড়কের পাশে অবৈধ হাটবাজার ও স্থাপনা উচ্ছেদ কক্সবাজারের ট্রেনের টিকিট যাচ্ছে কোথায়? চকরিয়ায় জেলে কার্ড দেয়ার প্রলোভনে টাকা আত্মসাত মৎস্য অফিসের তিন কর্মচারীর বিরুদ্ধে মামলা চকরিয়ায় অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে যুবক নিহত জেলা আওয়ামী লীগ নেতা কমরুউদ্দিনের জানাজায় শোকাহত মানুষের ঢল চকরিয়ায় হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার চকরিয়ায় এক ওয়ার্ডের বরাদ্দের টাকা অন্য ওয়ার্ডের রাস্তার কাজ দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের পাঁয়তারা? বমুবিলছড়ি ইউনিয়নে গোদী নিলামে অনিয়মের অভিযোগ প্রথম আলো বন্ধুসভা চকরিয়ার বন্ধু বরণ ও ইফতার মাহফিল কক্সবাজার ট্রাফিক পুলিশের স্মার্ট কক্স-ক্যাব

কক্সবাজারের ট্রেনের টিকিট যাচ্ছে কোথায়?

মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজার ::
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৬৪ পঠিত

ঈদে প্রথমবারের মত রেলে কক্সবাজারে আসা যাওয়ার স্বপ্ন নিয়ে থাকা কক্সবাজারবাসীর স্বপ্ন যেন অধরায় থেকে যাচ্ছে। কোনভাবেই সহজভাবে পাওয়া যাচ্ছে না রেলের টিকিট। এতে চরম হতাশ ও ক্ষুব্ধ উঠেছে কক্সবাজারের স্থানীয় বাসিন্দারা। তাদের দাবী ২ মিনিটের মধ্যেই কিভাবে ১ হাজার রেলের টিকিট বিক্রি হয়ে যায়। এটা অনলাইন প্রতারণা, আর বড় সিন্ডিকেটের কারসাজী ছাড়া আর কিছুই না। প্রাথমিক অবস্থায় এই কালোবাজারি ও সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হতে পারে বলে মনে করছেন কক্সবাজারের সুশীল সমাজ।
বাংলাদেশ সরকারের সাবেক অতিরিক্ত সচিব কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাসিন্দা নজির আহমদ জানান, আমি ঈদের ছুটিতে স্বপরিবারে কক্সবাজারে এসেছি, রেলে করে ফিরতে চিন্তা করে যোগাযোগ করার পর জানতে পারলাম ১৪ এপ্রিল কক্সবাজার থেকে ফিরতি টিকিট ছাড়বে ৪ এপ্রিল বৃহস্পতিবার। সময় ছিল বেলা ২ টা থেকে আমি ২ টা বাজার ১০ মিনিট আগে থেকে মোবাইল নিয়ে বসে আছি। পরে দেখছি ২ টা বেজে ৫/৬ মিনিট পর অনলাইনে দেখাচ্ছে সব টিকিট বুকিং। ১ হাজার ট্রেনের টিকিট কিভাবে ৫ মিনিটের মধ্যে বিক্রি হয়ে যায়। এটা কি আদৌ সম্ভব। এখানে অনলাইনে বড় ধরনের কোন হ্যাকার বা সিন্ডিকেট আছে যারা এসব কাজ করছে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে রেলের টিকিট আসলে যাচ্ছে কোথায় ? তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা কক্সবাজারে মানুষকে রেল উপহার দিয়েছেন, কিন্তু সেই রেলের সুফল কিছু দূর্বিত্বায়নে জড়িত সিন্ডিকেট ভোগ করবে এটা হতে দেওয়া যায় না।
বাংলাদেশ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের সাবেক সহকারী পরিচালক প্রফেসর আখতার আলম বলেন, আমার মেয়ে ঢাকাতে থাকে, তারা ঈদের ছুটিতে স্বপরিবারে কক্সবাজার আসার জন্য রেলে অনেক চেস্টা করেও টিকিট পাইনি। পরে গতকাল ৪ এপ্রিল ফিরতি টিকিট নেওয়ার জন্য দুপুর একটা থেকে আমরা ৩ জন মোবাইল নিয়ে বসে আছি। টিকিটের অ্যাপস খোলামাত্র আমরা চেষ্ঠা করেছি, কিন্তু দেখেছি কয়েক মিনিট পরেই সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। প্রায় এক হাজার টিকিট কি ৫ মিনিটের মধ্যে ভুতে এসে কেটে নিয়ে গেছে ? এটা সাধারণ মানুষের সাথে ভয়ংকর প্রতারণা। সত্যি কথা হচ্ছে যদি বিকল্প পথে চেষ্ঠা করি ঠিকই টিকিট পাব। তাহলে কেন আমি বৈধ পথে টিকিট পাব না। আমার মতে ৫০% টিকিট ম্যনোয়েল অর্থাৎ কক্সবাজার রেল ষ্টেশন থেকে বিক্রি করা দরকার। যাতে মানুষ সহজে নিতে পারে।
একই দাবী উপস্থাপন করে কক্সবাজার শহরের পাহাড়তলীর এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ি মো: রফিকুল ইসলাম বলেন, অনলাইনে রেলের টিকিট এখন বড় প্রতারণা এবং ঝামেলার কারন হয়ে দাড়িয়েছে, আমাদের দাবী হচ্ছে ৫০% টিকিট রেলষ্টেশন থেকে সরাসরি বিক্রি করলে প্রকৃত স্থানীয় মানুষ সহজেই টিকিট কিনতে পারবে।
একই দাবী জানিয়ে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ বলেন, আমি মনে প্রাণে দাবী করছি কমপক্ষে ৫০% টিকিট কক্সবাজার রেলষ্টেশন থেকে বিক্রি করা হোক। এতে মানুষ কিছুটা হলেও স্বস্থি পাবে। আর আইনশৃংখলা বাহিনি সহ সংশ্লিষ্টরা চাইলে অবশ্যই এসব অনিয়মের সাথে কারা জড়িত তাদের চিহ্নিত করা যাবে। তাই দ্রুত এসব দেশদ্রোহীদের খোঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার দাবী জানান।
এ ব্যাপারে কক্সবাজার রেলষ্টেশনের ম্যানেজার গোলাম রব্বানীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বর্তমানে কক্সবাজার ঢাকা চ্ট্রগাম পথে ২ টি ট্রেইন নিয়মিত চলছে, এর বাইরে ঈদ উপলক্ষ্যে আরো একটি স্পেশাল ট্রেইন চলবে। সবমিলিয়ে দৈনিক ৩ হাজার মানুষ যাতায়ত করতে পারবে। আর রেলের টিকিটের বিষয়ে আমাদের কোন করণীয় নাই। এগুলো সব যার যার মোবাইল থেকে নিজেরাই টিকিট ক্রয় করবে এখানে আমাদের হাতে কিছু নাই।

https://www.facebook.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2018 News Smart
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com