বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
চকরিয়ায় সিএনজি আটকিয়ে ছিনতাইয়ের প্রস্তুতি অস্ত্রসহ চার ছিনতাইকারী গ্রেফতার চকরিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দলিল লেখকের সহকারীর মৃত্যু মিডিয়াতে আবর্জনা ঢুকে গেছে সেটা পরিস্কার করতে হবে–প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান নিজামুল হক স্মার্ট বাংলাদেশ বির্নিমানে স্মার্ট কর্মী তৈরী করতে হবে–বিশেষ বর্ধিত সভায় সিআইপি এবার বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার পেল লামার কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন সাংবাদিক বেলালের পিতার ৫ম মৃত্যুবার্ষিকীর মিলাদ ও মাহফিল চকরিয়া শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ব্যাগ বিতরণ বর্তমান সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে আধুনিক করেছে–রেজাউল করিম রোহিঙ্গা খায়রুল চন্দ্রিমা এলাকায় অর্ধশত রোহিঙ্গাকে স্থায়ী করেছেন চকরিয়ায় ফাঁস লাগিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

কক্সবাজারে মজুদ আছে ১ লাখ ৯৬ হাজার পশু দেশের বাইরের গরু না আনার দাবী স্থানীয় খামারীদের 

মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজার ::
  • সময় : রবিবার, ২ জুন, ২০২৪
  • ২৭ পঠিত

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে চলতি মাসের ১৬ অথবা ১৭ জুন পালিত হবে ঈদুল আজহা। মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা পালনের প্রধান উপকরণ হচ্ছে পশু। জেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী চলতি বছরে কক্সবাজারে পশুর চাহিদা আছে ১ লাখ ৭৫ হাজার ১৪ টি। তবে এর বিপরীতে মজুদ আছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৮৭ টি। সে হিসাবে কোরবানী যোগ্য পশু উদ্বৃত ২১ হাজার ৬৭৩ টি। কোরবানীর পশু নিয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে খামারীদের দাবী দেশের বাইরে থেকে পশু আসলে স্থানীয় খামারীরা ক্ষতিগ্রস্থ হবে অন্যদিকে ক্রেতাদের দাবী বাইরের পশু না আসলে অতিরিক্ত দাম নিয়ে গ্রাহকদের ঠকায় স্থানীয় খামারী বা ব্যবসায়িরা।

কক্সবাজার জেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী জেলায় চলতি বছর কোরবানী যোগ্য পশুর চাহিদা আছে ১ লাখ ৭৫ হাজার ১৪ টি। তবে স্থানীয় ৭৯৫৬ টি খামারে পশু মজুদ আছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৮৭ টি। সে হিসাবে প্রায় ২১ হাজার ৬৭৩ টি কোরবানী যোগ্য পশু উদ্বৃত্ম আছে। কক্সবাজারে মজুদ থাকা পশুর মধ্যে ষাড় ৬৩ হাজার ৭৯৬ টি। বলদ ২০ হাজার ৭৩৫ টি। গাভী ১৫ হাজার ৯৫৮ টি। মহিষ ৫ হাজার ১০৫। ছাগল ৮০ হাজার ৪১৭ টি। ভেড়া ১০ হাজার ৬৭৬ টি।
এ ব্যপারে জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: মো: সাহাব উদ্দিন বলেন, কোরবানী উপলক্ষে আমাদের যথেষ্ট পশু মজুদ আছে, দেশে বা জেলার বাইরে থেকে পশু আনার প্রয়োজন পড়বে না। পশু গুলো যাতে কোন প্রকার ভেজাল বা ক্ষতিকারক ঔষধ দিয়ে মোটাতাজা করা না হয় সে জন্য আমাদের টিম নিয়মিত পর্যবেক্ষন করছে।

এছাড়া কোরবানীর পশুর হাটেও আমাদের মেডিকেল টিম থাকবে। বর্তমানে খাদ্যের দাম বাড়ার কারনে গরু সহ অন্যান্য পশুর দাম বেড়েছে জানিয়ে জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আরো জানান, বর্তমান বাজার পরিস্থিতি মতে পশু খাদ্য অনেক দামে বিক্রি হচ্ছে সেটা যদি রোধ করা যেত তাহলে পশুর দাম আরো কমে আসতো। এতে আমাদের খামারীরা উপকৃত হতো।

এদিকে খামারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বলেন, দেশীয় খামারীদের জন্য কোরবানী বাজার হচ্ছে কিছু আয় করার মৌসুম। আমরা একেবারে বেশি দামে বিক্রি করি সেটাও ঠিক নয়। তবে গরু সংকটের কথা বলে দেশের যেমন ভারত বার্মা থেকে গরু আনলে আমাদের চাষী বা খামারীরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হবে। তাই আমরা সরকারের কাছে অনুরোধ করবো কোন ভাবেই যাতে বাইরে থেকে গরুর আনার জন্য অনুমতি না দেয়।

এতে দেশীয় খামারী বা চাষীরা উপকৃত হবে। আর বর্তমান পশুর খাদ্যের অতিরিক্ত দাম বেড়েছে। আগে এক বস্তা খাদ্যের দাম ছিল ১২০০ থেকে ১৫০০ এখন সেই খাদ্য ৩৩০০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। তাহলে আপনারাই ভেবে দেখুন কিভাবে চাষীরা গরু পালন করবে।
এদিকে কোরবানীর পশু বা বাজার পরিস্থিতি নিয়ে স্থানীয় টেকপাড়ার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীন সওদাগর,পেশকার পাড়ার নুরুল আলম,বাহারছড়ার আবু,দিল মোহাম্মদ রুস্তম সহ অনেকের সাথে কথা বলে জানা গেছে,কোরবানী আসলেই গরুর দাম অতিরিক্ত হয়ে যায়। স্থানীয় চাষী বা খামারীরা কোরবানীদাতাদের জিম্মি করে দ্বিগুন দাম আদায় করে। তাই ভারত বা বার্মা থেকে গরু আনার অনুমতি দিলে সাধারণ মানুষের জন্য ভাল হবে। অনেকে আছে ১০ বা ১২ হাজার টাকা দিয়ে এক ভাগ কোরবানি দিতে চায় কিন্তু গরুর অতিরিক্ত দামের কারনে এক ভাগ কোরবানী ২০ হাজার টাকা হয়ে যায় তাই আমরা ক্রেতাদের দাবী বার্মা থেকে গরু আমদানী করা উচিত।
এছাড়া কোরবানীর বাজার গুলো রাস্তার উপর না করে যে কোন এলাকায় কোন খালী মাঠে করলে ভায় হয় বলেও জানান সচেতন মহল।

https://www.facebook.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2018 News Smart
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com